• ২০ আশ্বিন১৪২৯  - বুধবার, অক্টোবর ৫, ২০২২

ধর্ষকদের বাড়ি গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো বুলডোজারে!

ধর্ষকদের বাড়ি গুঁড়িয়ে দেওয়া হলো বুলডোজারে!

ভারতের মধ্যপ্রদেশের রেওয়া জেলার নয়গাড়ি থানা এলাকায় শনিবার দুপুরে মন্দিরে পূজা দিতে আসা এক কিশোরীকে (১৬) তুলে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করেছে ছয় বখাটে।

তার পর মারধর করে মেয়েটিকে তারা রাস্তায় ফেলে রেখে যায়। এ ঘটনায় গুরুতর জখম ওই কিশোরীর অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। খবর আনন্দবাজার পত্রিকার।

পুলিশ জানিয়েছে, ধর্ষকরা সংখ্যায় ছিল ছয়জন। তাদের মধ্যে দুজন নাবালক। অভিযুক্তদের তিনজনকে রোববারই গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বাকি তিনজনেরও খোঁজ চলছে।

আপাতত শাস্তিমূলক ব্যবস্থা হিসেবে আটক তিনজনের বাড়িতে বুলডোজার চালিয়েছে জেলা প্রশাসন। তারা জানিয়েছে, বাড়িগুলো বেআইনিভাবে তৈরি করা হয়েছিল।

তবে একই সঙ্গে রেওয়া প্রশাসন জানিয়েছে, বাকি তিনজন গ্রেফতার হলে, তাদের বিরুদ্ধেও একই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ছয়জনের বিরুদ্ধেই গণধর্ষণ, ডাকাতি, নাবালিকাকে যৌন নির্যাতনের ধারায় অভিযোগ করে এফআইআর করা হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

শনিবার পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন ওই কিশোরীর এক বন্ধু। তিনি পুলিশকে জানিয়েছেন, ওই দিন দুপুরে মন্দিরে পুজা দিতে গিয়েছিলেন তারা।

পুজা দেওয়ার পর তারা মন্দির চত্বরেরই একপ্রান্তে বসে গল্প করছিলেন। সেই সময়ই দুজনের ওপর চড়াও হয় ওই ছয়জন।

কিশোরীকে তার বন্ধুর সামনেই মন্দির চত্বর থেকে টেনে নিয়ে যাওয়া হয় নির্জন এলাকায়।

পুলিশকে অভিযোগকারী জানিয়েছেন, দুজনই ওই ধর্ষণকারীদের কাছে তাদের ছেড়ে দেওয়ার জন্য কাতর আবেদন জানান। কিন্তু তাদের কোনো কথাই কানে তোলেনি দুষ্কৃতকারীরা।

ওই কিশোরীর ওপর পালাক্রমে অত্যাচার চালানোর পর তাকে রাস্তাতেই ফেলে রেখে পালিয়ে যায় ধর্ষণকারীরা। যাওয়ার আগে দুজনকেই প্রাণনাশের হুমকিও দিয়ে যায়।

পুলিশ খবর পেয়ে ওই আশঙ্কাজনক অবস্থায় ওই কিশোরীকে হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানেই তিনি আপাতত চিকিৎসাধীন।

অন্যান্য
ভ্রমন