• ১৫ অগ্রহায়ণ১৪২৯  - মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৯, ২০২২

দুই বছর পর বিশ্ব ইজতেমা ১৩ জানুয়ারি শুরু

দুই বছর পর বিশ্ব ইজতেমা ১৩ জানুয়ারি শুরু

আগামী বছর সংক্ষিপ্ত আকারে দুই পর্বে অনুষ্ঠিত হবে বিশ্ব ইজতেমা। প্রথম পর্বে ১৩ থেকে ১৫ জানুয়ারি জমায়েত হবে মাওলানা জোবায়েরপন্থি মসুল্লিরা। আর ২০ থেকে ২২ জানুয়ারি দ্বিতীয় পর্বে ওয়াসিফপন্থিরা বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নেবেন।

বৃহস্পতিবার বিকালে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে আইনশৃঙ্খলাসংক্রান্ত সভায় বিশ্ব ইজতেমার এই দিন ঠিক করা হয়। সভা শেষে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, টঙ্গীতে ঐতিহাসিক যে বিশ্ব ইজতেমা হয়ে থাকে, গত দুই বছর করোনা মহামারিতে তা বন্ধ ছিল। করোনা নিয়ন্ত্রণে থাকায় ২০২৩ সালে সক্ষিপ্ত আকারে স্বাস্থ্যবিধি মেনে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠানের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। তবে ইজতেমা অনুষ্ঠান নিয়ে মতবিরোধ এখনো আছে।

মতবিরোধ নিরসনে গতবার আমরা দুই ভাগে ইজতেমা করার জন্য পরামর্শ দিয়েছিলাম, তারা সেটা করেছে। এবারও ঠিক সেভাবেই করতে বলা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, এক দলের নেতা হলেন মাওলানা যুবায়ের আহমদ এবং অন্য দলের নেতা হলেন ওয়াসিফুল ইসলাম। দুজনই আগে একসঙ্গে তাবলিগ করতেন। এখন তারা দুজন দুই প্রান্তে চলে গেছেন। তাদের সবাইকে এখানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল, তারা এসেছেন। তারা যেন বিশ্ব ইজতেমা সুন্দরভাবে সুসম্পন্ন করেন, এরকম একটা অনুরোধ রেখেছিলাম। পাশাপাশি আরও একটি অনুরোধ করেছি, দুজন একত্র হয়ে সিদ্ধান্ত দেন, কে আগে করবেন কে পরে করবেন কিংবা একসঙ্গে করতে পারবেন কিনা। তারা একসঙ্গে করতে একমত হতে পারেননি। কিংবা কে আগে করবেন, কে পরে করবেন, সে বিষয়েও একমত হতে পারেননি। আমাদের ওপর সিদ্ধান্তের ভার দিয়েছিল। আমরা তখন তাদের জানিয়ে দিয়েছি। আমরা কোনো কিছু পরিবর্তন করব না। গতবার যেভাবে বিশ্ব ইজতেমা অনুষ্ঠিত হয়েছিল এ বছরও সেভাবে অনুষ্ঠিত হবে বলে জানান মন্ত্রী।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, আমাদের সিদ্ধান্ত উভয়পক্ষই মেনে নিয়েছেন। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী যুবায়ের গ্রুপ আগামী ১৩ থেকে ১৫ জানুয়ারি পর্যন্ত বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নেবে। সম্পন্ন হওয়ার পর তারা ইজতেমা ময়দান প্রশাসনকে বুঝিয়ে দেবে। অর্থাৎ পুলিশ প্রশাসন, জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় মেয়র মাঠ বুঝে নেবেন। এরপর আরেক গ্রুপ ২০ থেকে ২২ জানুয়ারি পর্যন্ত বিশ্ব ইজতেমায় অংশ নেবে।


ভ্রমন