•  জ্যৈষ্ঠ১৪২৯  - সোমবার, মে ২৩, ২০২২

মাদারীপুরে মৎস্যজীবী লীগ নেতা হত্যাকাণ্ডের জেরে ১০ বাড়িতে আগুন

মাদারীপুরে মৎস্যজীবী লীগ নেতা হত্যাকাণ্ডের জেরে ১০ বাড়িতে আগুন

মাদারীপুরের কালকিনিতে মৎস্যজীবী লীগ নেতা মানিক সরদারকে হত্যার জের ধরে সাবেক চেয়ারম্যান মিলন সরদারের বাড়িসহ কমপক্ষে ১০টি বাড়িতে আগুন দিয়েছে বিক্ষুব্ধরা।

মঙ্গলবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) রাতে নিহত মানিক সরদারের সমর্থকরা কালকিনি উপজেলার আলীনগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) সাবেক চেয়ারম্যান মিলন সরদারের বাড়িতে হামলা ও লুটপাট চালান। পরে পেট্রল ঢেলে তার বসতঘরসহ ১০টি ঘর ও ১টি ইটভাটায় আগুন ধরিয়ে দেন। খবর পেয়ে মাদারীপুর ফায়ার সার্ভিসের দুটি ও বরিশালের গৌরনদী ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট চার ঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন জেলার পুলিশ সুপার, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটসহ প্রশাসনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। হত্যাকাণ্ড কিংবা অগ্নিসংযোগের দুইটি ঘটনার একটিতেও এখনো কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। ঘরবাড়িতে আগুন ও লুটপাটের ঘটনায় পুরো ইউনিয়নে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে। এর আগে, সোমবার (০৭ ফেব্রুয়ারি) রাত ৯টার দিকে কালীনগর এলাকার পালরদী নদীর পাড় থেকে মানিক সরদারের লাশটি উদ্ধার করা হয়। নিহত মানিক সরদার একই এলাকার আলমগীর সরদারের ছেলে। তিনি কালকিনি উপজেলা মৎস্যজীবী লীগের সহ-সভাপতি ছিলেন।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার গোলাম মোস্তফা রাসেল বলেন, সাবেক চেয়ারম্যানের বসতঘরসহ বেশ কয়েকটি ঘর ও ইটভাটায় আগুন ধরিয়ে দেন বিক্ষুব্ধ লোকজন। তারা মনে করছেন- মানিককে সাবেক চেয়ারম্যান মিলন সরদারের লোকজন হত্যা করেছেন। কিন্তু আইন হাতে তুলে নেওয়া কারও জন্যই ঠিক হয়নি। দুইটি ঘটনার এখনো কাউকে আটক করা সম্ভব না হলেও অভিযান চলছে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, দ্বিতীয় ধাপে কালকিনি উপজেলার আলীনগর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন হয়। ওই নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাহিদ পারভেজের সমর্থক ছিলেন নিহত মানিক সরদার। নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী ছিলেন ওই ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মিলন সরদার। রাজনৈতিক দ্বন্দ্ব ছাড়াও দীর্ঘদিন ধরে জমিজমা নিয়ে মিলন সরদারের সঙ্গে মানিকের বিরোধ ছিল। এই বিরোধের জেরেই মিলনের নির্দেশে মানিককে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ নিহত মানিক সরদারের স্বজনদের।

অন্যান্য
ভ্রমন