• ১৫ অগ্রহায়ণ১৪২৯  - মঙ্গলবার, নভেম্বর ২৯, ২০২২

বাবরকে নিয়ে গিলক্রিস্টের যে উদাহরণ টানলেন হেইডেন

বাবরকে নিয়ে গিলক্রিস্টের যে উদাহরণ টানলেন হেইডেন

চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শুরু থেকে রান পাচ্ছেন না পাকিস্তানের অধিনায়ক বাবর আজম। এই কঠিন সময়ে অধিনায়কের কাঁধে ভরসার হাত রাখলেন দলের মেন্টর ম্যাথু হেইডেন। অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটিং গ্রেট মনে করেন, বাবরের ব্যাটে বড় ইনিংস এলো বলে।

এ ক্ষেত্রে তিনি উদাহরণ টানলেন ২০০৭ ওয়ানডে বিশ্বকাপ ফাইনালে তার উদ্বোধনী সঙ্গী অ্যাডাম গিলক্রিস্টকে এবং তার সেই বিধ্বংসী সেঞ্চুরিকে।

চলতি বিশ্বকাপে এখনো পর্যন্ত ৫ ম্যাচে বাবরের রান মাত্র ৩৯। প্রথম চার ম্যাচে তো দুই অঙ্কেই যেতে পারেননি তিনি। বাংলাদেশকে হারিয়ে সেমিফাইনালে ওঠার ম্যাচে করেন ২৫ রান। টি-টোয়েন্টি ব্যাটসম্যানদের র‌্যাংকিংয়ে তিনি নেমে গেছেন চার নম্বরে।

বিশ্বকাপে তার এ ফর্ম নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। ওপেনিং থেকে তাকে তিন নম্বরে নামিয়ে দেওয়ার কথা বলছেন অনেকে। মঙ্গলবার হেইডেনের সংবাদ সম্মেলনেও উঠল প্রসঙ্গটি। অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ব্যাটসম্যান তখন ফিরে গেলেন ২০০৭ বিশ্বকাপে।

তিনি বলেন, বাবর ও রিজওয়ান সঠিক এক নম্বর কম্বিনেশন। যদি ২০০৭ সালের বিশ্বকাপের দিকে তাকান, অস্ট্রেলিয়া বিশ্বকাপে অপরাজিত ছিল, তবে গিলক্রিস্টের সময় খুব একটা ভালো কাটছিল না। শ্রীলংকার বিপক্ষে ফাইনালের কথা যদি মনে করেন, সে অবিশ্বাস্য সেঞ্চুরি করেছিল এবং তার সামর্থ্যের প্রমাণ দিয়েছিল। বিশ্বকে আরও একবার জানান দিয়েছিল, এই সংস্করণে সেরা ব্যাটসম্যানদের একজন সে।

ওই আসরে গ্রুপ পর্ব থেকে শুরু করে ১১ ম্যাচের সব জিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল অস্ট্রেলিয়া। প্রথম ১০ ম্যাচে গিলক্রিস্টের ফিফটি ছিল দুটি। সুপার এইটের শেষ ম্যাচে ও সেমিফাইনালে তিনি আউট হন ১ রান করে।

সিডনিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বুধবারের সেমিফাইনালের আগে নেটে বাবরের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করতে দেখা যায় হেইডেনকে। সাবেক অস্ট্রেলিয়ান ওপেনার মনে করেন, বাবরের ফর্মে ফেরা শুধু সময়ের ব্যাপার।

হেইডেন বলেন, আমরা জানি— সবার ক্যারিয়ারে উত্থান-পতন থাকে। বাবরের সময় যে খারাপ কাটছে, তাতে কোনো সন্দেহ নেই। তবে এটিই তাকে আরও বড় খেলোয়াড় করে তুলবে।

তিনি আরও বলেন, সবসময় কেউ সেঞ্চুরি কিংবা ফিফটি বা ১৪০ স্ট্রাইক রেটে রান করে যেতে পারবে না। কিছু মুহূর্ত আসে যখন সব কিছু নিস্তব্ধ হয়ে যায়। আবহাওয়ার কথাই ধরুণ, ঝড়ের আগে প্রায় সময়ই পরিবেশ খুব শান্ত হয়ে যায়। তাই চোখ রাখুন, আমি মনে করি, বাবরের কাছ থেকে বিশেষ কিছু দেখতে চলেছেন।


ভ্রমন