•  জ্যৈষ্ঠ১৪২৯  - সোমবার, মে ২৩, ২০২২

রুশ দূতাবাসের নিচে মার্কিন সুড়ঙ্গ, সেই উত্তেজনাও ছাড়িয়ে যেতে পারে ইউক্রেন ইস্যু!

রুশ দূতাবাসের নিচে মার্কিন সুড়ঙ্গ, সেই উত্তেজনাও ছাড়িয়ে যেতে পারে ইউক্রেন ইস্যু!

ইউক্রেন ইস্যুতে আবারও নতুন মোড় নিতে পারে রাশিয়া-আমেরিকার সম্পর্কে। এমনকি ৪০ বছরে আগে যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটন ডিসিতে রুশ দূতাবাসের নিচে মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই সুড়ঙ্গ খোঁড়ার পর যে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছিল, সেটিকেও ছাড়িয়ে যেতে পারে ইউক্রেন ইস্যু।

ওয়াশিংটনে ১৯৮০-এর দশকে তৎকালীন সোভিয়েত ইউনিয়নের দূতাবাস নিয়ে যা হয়েছিল- সে ঘটনা যেকোনও গোয়েন্দা উপন্যাসের কাহিনীকেও হার মানায়।

দূতাবাসে বসে রাশিয়ানরা কী করছে, কী বলছে- তা আড়ি পেতে শোনার জন্য ভবনের নীচ দিয়ে সুড়ঙ্গ খুঁড়েছিল মার্কিন গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই। যদিও সে কথা একজন ডাবল এজেন্টের কারণে ফাঁস হয়ে গিয়েছিল।

তখন দুই দেশের মধ্যে অবিশ্বাস্য মাত্রার রেষারেষি শুরু হয়েছিল। যদিও এখন আর সেই রেষারেষি নেই। কিন্তু কিন্তু ইউক্রেন ইস্যুকে কেন্দ্র করে রুশ-মার্কিন সম্পর্কে উত্তেজনা এখন আবারও বিপজ্জনক মোড় নিতে পারে।

সেই পুরনো শত্রুর সঙ্গে সৃষ্ট নতুন উত্তেজনা মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন কীভাবে সামাল দেন, সেটাই এখন সংকটের সময় নেতা হিসেবে যোগ্যতা প্রমাণে তার সামনে বড় পরীক্ষা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

বর্তমান সংকটকে কূটনৈতিকভাবে নিরসনের চেষ্টা এখনও চলছে। এর অংশ হিসেবে বর্তমানে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাকরন রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন। পরিস্থিতি বিবেচনায়, এই মুহূর্তে ইউক্রেন সংকট নিরসনে সবচেয়ে বড় প্রশ্ন- রাশিয়ার মোকাবিলা করা মার্কিন প্রেসিডেন্ট বাইডেনের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ।

অন্যান্য
ভ্রমন