প্রবাসী ভাইকে “বালের কামলা” বলা সেই দুই আনসার বহিষ্কার

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

“বালের কামলা”র দাঁত ভাঙ্গা জবাব প্রবাসী ভাইরা নিজেরাই। প্রবাসীদের অপমানের বদলা নিল পুলিশ। অবশেষে জয় হল বাংলা প্রবাসী ভাইদের।

প্রবাসী ভাইদের দাবি মেনে নিয়ে বহিষ্কার করা হল বালের কামলা বলে গালি দেওয়া দুই আনসার কর্মকর্তাকে । বালের কামলা বলার দাঁত ভাঙ্গা জবাব পেল দুই আনসার কর্মকর্তা। প্রবাসী ভাইয়ের ব্যাগ রাখা কে কেন্দ্র করে ঐ প্রবাসী ভাইকে“

যোগ্যতাহীন বালের কামলা”” বলে গালি দেওয়া সেই পুলিশ এবং আনসার কর্মকর্তার বহিষ্কারের দাবিতে আজ উত্তাল মিডিয়া। কেননা ঐ প্রবাসী ভাইকে গালি দিয়ে শুধুমাত্র তাকেই ছোট করা হয়নি। বরং সারা বিশ্বের সকল বাংলা প্রবাসী ভাইদেরকে ঘোড় অপমান করা হয়েছে।

প্রবাসী ভাইদের বালের কামলা বলে গালি দেওয়ার প্রতিবাদে যখন উত্তাল মিডিয়া তখন প্রবাসী ভাইদের পক্ষ থেকে উঠে এসেছে এয়ারপোর্ট পুলিশের নানা দুর্নীতির ছবি । সম্প্রতি ঐ দুই আনসার কর্মকর্তার বহিষ্কারের দাবির পাশাপাশি প্রবাসী ভাইদের পক্ষ থেকে ৬ টি দাবি জানানো হয় তার মধ্যে প্রবাসী ভাইদের পক্ষ জোড় দাবি অনেক পুলিশ কর্মকর্তা বিমানবন্দরে তাদের কাছে থেকে কৌশলে টাকা ছিনিয়ে নেন।

যেটাকে সহজ বাংলায় ঘুষ বলা হয়। আবার অনেক প্রবাসী ভাই বিদেশ থেকে ভ্যাট দিয়ে কোন জিনিস ক্রয় করে আনলেও তার বিনিময়েও তাদের টাকা গুনতে হয়। আবার অনেক পুলিশ কর্মকর্তা বকশিসের কথা বলেও বড় অঙ্কের টাকা ছিনিয়ে নেয়। এটাই প্রথম নয় বিদেশে যাওয়ার সময় কিংবা আসার সময় নানা ভাবেই পুলিশে ব্যবহারে কষ্ট পেতে হয় প্রবাসীদের।

সহজ বাংলায় বলতে গেলে এয়ারপোর্টে প্রবাসীদের কাছে থেকে পুলিশ সদস্যরা যেভাবে টাকা ছিনতাই করে নেয় তা বন্ধ করতে হবে। প্রবাসী ভাইদের উত্থাপিত দাবি মেনে নিয়ে এয়ারপোর্ট পুলিশের

পক্ষ থেকে জানানো হয় যে ২৪ ঘন্টা তাদের একজন সিনিয়র অফিসার অভিযোগ বা তথ্যের বিপরীতে ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকেন এবং তার একটা সুরাহা প্রদান করেন। কোন সদস্যের আচরণে বিচ্যুতি ঘটলে সংশ্লিষ্ট ফোর্স বা তদারকি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকে উক্ত বিষয়টি তদন্ত করে দায়ী সদস্যর বিরুদ্ধে যথাযথ বিভাগীয় শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করার বিষয়ে কমান্ডিং অফিসার আশ্বস্ত করেছেন।

ঐ দুই সদস্যকে সাময়িক ভাবে বিমান বন্দরের দায়িত্ব থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে বলেও জানান ঐ কমান্ডার অফিসার। তিনি আরও জানান এর পর থেকে বিমানবন্দরে দায়িত্ব চলাকালীন সময়ে কোন পুলিশ বা আনসার কর্মকর্তা কোন যাত্রী বা তার সাথে আগত আত্মীয় সজনদের সাথে খারাপ ব্যবহার করলে তার বিরুদ্ধে সরাসরি পদক্ষেপ নেওয়া হবে। এ বিষয়ে এয়ারপোর্ট পুলিশের পক্ষ থেকে একটি নোটিশ দেওয়া হয়েছে তাতে বলা হয়েছে ।

Share.