‘বিশ্বকাপে ফাইনালে খেলবে বাংলাদেশ’

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

আগামী বছর পর্দা উঠছে ক্রিকেটের সবচেয়ে জনপ্রিয় আসর বিশ্বকাপ। ক্রিকেট বিশ্বের সবচেয়ে বড় এই আসরকে ঘিরে এখন থেকেই দলগুলো নিজেদের গুছিয়ে নিতে ব্যস্ত সময় পার করছে। বাদ যায়নি বাংলাদেশও। বিশ্বকাপে যেন ভালো করা যায় সেজন্য এখন থেকেই পরিকল্পনা করে যাচ্ছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড।

ক্রিকেটের জন্মস্থান ইংল্যান্ডে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এবারের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দল অনেক দূরে যাবে এমনটা প্রত্যাশা টাইগার ভক্ত ও বাংলাদেশের ক্রিকেটের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের। টাইগারদের নিয়ে আশাবাদী কম নন ক্রিকেটার অলোক কাপালিও। তার ভাবনায় আগামী বিশ্বকাপের ফাইনালে খেলবে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপ ভাবনা ছাড়াও বাংলাদেশের ক্রিকেটের বিভিন্ন দিন নিয়ে ঢাকাটাইমসের সঙ্গে কথা বলেছেন এই ক্রিকেটার। তার সঙ্গে আলাপচারিতায় ছিলেন ঢাকাটাইমস টোয়েন্টিফোর ডটকমের ক্রীড়া প্রতিবেদক হিমু আক্তার।

ঢাকাটাইমস: কেমন আছেন?

অলক: এইতো ভালই আছি।

ঢাকাটাইমস: বর্তমানে ঢাকা লিগ চলছে। ডিপিএলের এই আসরে আপনি অনেক ভাল পারফর্ম করেছেন। ইতিমধ্যে ম্যান অব দ্যা ম্যাচও হয়েছেন কয়েকবার। কত দিন এভাবে ক্রিকেট চালিয়ে যেতে চান?

অলক: আসলে যত দিন ফিটনেস ভাল থাকবে ততদিনই ক্রিকেটের সঙ্গে থাকতে চাই। যদিও ফিটনেসের সঙ্গে পারফর্মেরও একটা সম্পর্ক রয়েছে। তাছাড়া প্রতি বছরই ভাল খেলার টার্গেট থাকে। পরের বছর আরো ভাল করার টার্গেট আছে। এ বছরের শুরুটা ভালই হয়েছে। বিসিএল এর শেষ মৌসুমে সেঞ্চুরি করেছি। এই মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগে দুই বার ম্যান অব দ্যা ম্যাচ হয়েছি। তবে ওইভাবে নির্দিষ্ট কোনো সময় নেই যে কত দিনে পর্যন্ত খেলতে পারবো।

ঢাকাটাইমস: এবার একটু অন্য প্রসঙ্গে আসি। সম্প্রতি শেষ হওয়া নিদাহাস ট্রফির ফাইনাল ম্যাচটি নিয়ে কিছু বলুন।

অলক: আসলে ওই দিনের ম্যাচটা কিন্তু ঘুরিয়ে নিয়ে আসছিল আমাদের রুবেলই। তার প্রথম স্পেলে করা তিন ওভারে ১৩ রান দেয়ার কারণে ম্যাচটা অনেকটাই বাংলাদেশের পক্ষে আসে। কিন্তু তার শেষ ওভারে দিনটা ছিলো কার্তিকের যার কারণে নাটকীয় ভাবে জয়টা পায় ভারত। তাছাড়া এই রকমের অবস্থায় ও (রুবেল) বেশ কয়েকবার বোলিং করে সফল হয়েছে। যদি নিদাহাস ট্রফির ওই ম্যাচও বিবেচনা করেন দেখবেন তার চার ওভারের প্রথম তিন ওভারে ও কিন্তু দারুণভাবে সফল। সে ক্ষেত্রে ১৯ নম্বর ওভারটি কিন্তু রুবেলই পাবার যোগ্য ছিলো বলে আমি মনে করি। তবে সবচেয়ে বড় কথা সেদিন ভাগ্যই আমাদের সঙ্গে ছিল না।

ঢাকাটাইমস: অনেকে অভিযোগ করেছিল ১৯তম ওভারটি রুবেল ছাড়া অন্য কেউ করলে রেজাল্টটা আমাদের পক্ষে আসতে পারত। আপনার কি মনে হয়?

অলক: আসলে আমার তেমনটি মনে হয় না। রুবেল কিন্তু তাড়াতাড়ি দুইটি উইকেট নিয়েছিল এবং যেটা আমাদের ওই সময় ম্যাচে খুব দরকার ছিল। আর সবাই জানে রুবেল কিন্তু স্লোগ ওভারে ভাল বলিং করে। ওই দিনও করেছিল। যাই হোক সেদিনের জন্য তাকে দোষ দেয়ার কিছু নেই। ওই দিন হয়তো ম্যাচ আমাদের ফেভারে ছিল না তাই হয়নি। আগামীতে হয়তো এরকমের ম্যাচের রেজাল্টই আমাদের পক্ষে আসবে।

ঢাকাটাইমস: ২০০৯-১৮ বাংলাদেশ পাঁচবার বিভিন্ন টুর্নামেন্টের ফাইনালে খেলেও কিন্তু ট্রফির দেখা পায়নি। আসলে দুর্বলতা বা ঘাটতির জায়গাটা কোথায় বলে আপনার মনে হয়?

অলক: আসলে ঘাটতির জায়গা না। আপনি দেখেন দিন দিন আমরা কিন্তু ক্রিকেটে উন্নতি করছি। একটা জিনিস দেখেন আমরা কিন্তু বিশ্ব ক্রিকেটে দশ-এগারতম অবস্থানে ছিলাম। আর এখন আমরা সাত নম্বরে। আমার যেটা বিশ্বাস সামনে দুই তিন বছরে আমরা তিন চারে চলে আসব। দেখা যাচ্ছে আমরা কোনো টুর্নামেন্টের ফাইনালে আসার আগের ম্যাচগুলো খুব ভাল খেলে আসছি কিন্তু শেষ ফিনিশিংটা সেইভাবে হচ্ছে না।

ঢাকাটাইমস: বর্তমান বাংলাদেশ টিমটা আপনার কাছে কেমন মনে হয়?

অলক: হ্যাঁ, বর্তমান টিমটা অন্য দেশের টিমের চেয়ে অনেক ভালো। যারা দলে আছে তারা কিন্তু সবাই নিয়মিত পারফর্ম করে দলে রয়েছেন। দেখেন অন্য দেশের টিমে কিন্তু ব্যাকআপে তেমন সিনিয়র ক্রিকেটার নেই যারা ছিল তারা কিন্তু রিটায়ার্ড হয়ে গেছেন। সেটা আমাদের আছে তাই এটা কিন্তু আমাদের জন্য অনেক বড় একটা প্লাস পয়েন্ট। সামনে বিশ্বকাপ দেখবেন সেখানে কিন্তু আমাদের টিম অনেক ভাল খেলবে।

ঢাকাটাইমস: ২০১৯ বিশ্বকাপে বাংলদেশকে কোথায় দেখতে চান?

অলক: আমি আশা করি যে বাংলাদেশ বিশ্বকাপের ফাইনাল খেলবে। তবে আমার বিশ্বাস সেরা চারে বাংলাদেশ যাবেই। সেরা চারে যাবার মত সব সামর্থ্য আমাদের টিমে রয়েছে। আর ২০-২৫ জন ক্রিকেটার নিয়মিত পারফর্ম করে ঘুরেফিরে দলে খেলছে। এদের মধ্যেই বিশ্বকাপে আমরা আমাদের সেরা একাদশকে পাব।

(ঢাকাটাইমস

Share.