‘বুঝলাম দেশ উন্নয়নশীল তাতে আমার কি লাভ’

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশের প্রাথমিক ধাপে পৌঁছেছে মাত্র, উন্নয়নশীল দেশ হয়ে যায়নি এমন মন্তব্য করে নিজের ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন সাপ্তাহিক পত্রিকার সম্পাদক গোলাম মোর্তজা।

আমাদেরসময় পাঠকদের জন্য সেটা হুবহু তুলে ধরা হলো। তিনি তার তার লিখেছেন- জনগণকে রাস্তায় আটকে রেখে, মূলত প্রজাতন্ত্রের কর্মচারিদের নিয়ে উদযাপন কেন? এদেশের যা কিছু অর্জন, প্রায় সবই করেছেন সাধারণ মানুষ- কৃষক। পোষাক শিল্পের কথা বলবেন, সেখানেও মূল শক্তি কৃষকের সন্তান কর্মীরা।

উন্নয়নশীল দেশের প্রাথমিক ধাপে পৌঁছেছি মাত্র, বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হয়ে যায়নি। ২০২৪ সালে মানে আরও অর্ধ যুগ পরে গিয়ে বোঝা যাবে বাংলাদেশ উন্নয়নশীল দেশ হলো কিনা। এত আগে এমন উৎসব যখন চলছে, তখন জনজীবনে আতঙ্কজনক অস্থিরতা। ব্যাংকে পর্যাপ্ত টাকা নেই, খেলাপি ঋণের পরিমান আতঙ্কজনক- ভয়ঙ্কর গতিতে শুধু বাড়ছেই। জিনিসপত্রের দাম বাড়ছে, ডলারের দাম বাড়ছে। চালসহ জিনিসপত্রের দাম আরও কয়েক দফা বাড়বে।

ব্যাংকের তারল্য সংকটের একটা বড় কারণ, সরকার সঞ্চয়পত্রের মাধ্যমে বিপুল পরিমান টাকা ঋণ নিয়েছে। সেই টাকা এবং বিদেশ থেকে ঋণ করে আনা টাকা অনিয়ম- অপচয়- দুর্নীতি হচ্ছে।

ভারত যে রাস্তা ১০ কোটি টাকা খরচ করে, বাংলাদেশ সেই রাস্তা ৭০-১০০ কোটি টাকা খরচ করে। পৃথিবীর সবচেয়ে নিম্নমানের রাস্তা, সবচেয়ে বেশি ব্যায়ে, ইউরোপ- আমেরিকার চেয়েও দ্বিগুণ বা তিন গুণ ব্যায়ে নির্মাণ করছে।

চুরি- লুট হয়ে যাওয়া এসব টাকার একটা অংশ পাচার হয়ে যাচ্ছে। সরকারের সক্ষমতা অত্যন্ত দুর্বল। শিক্ষা ব্যাবস্থা ধ্বংস হয়ে গেছে। এখনই যোগ্য লোক পাওয়া যায় না। ভারত- শ্রীলংকান- চীনারা উচ্চ পদে কাজ করে। ১৫/২০ বছর পর যোগ্য লোকের সংকট ভয়াবহ আকার ধারণ করবে।

এত অনুন্নত রাজনীতি, এত উন্নয়ন- উন্নয়নশীল দেশ বিষয়ক কথা, মানুষের বিরক্তির কারণ হয়ে উঠছে। অর্থমন্ত্রী বলেছেন, দেশ উন্নয়নশীল হয়েছে, কর বাড়বে। মানুষ আতঙ্কিত হয়ে ভাবছে, ‘দেশ উন্নয়নশীল বুঝলাম, আমার কি লাভ হলো, আমি কি পেলাম’? রাজনীতি এত অনুন্নত, প্রতিষ্ঠান বলতে কিছু নেই।

Share.