টাইগারদের এবার টেস্টের পরীক্ষা নেবে শ্রীলঙ্কা

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

শ্রীলংকার বিপক্ষে ত্রিদেশীয় সিরিজের ফাইনালে হারের ক্ষত এখনও শুকায়নি। হারের কারণ নিয়ে বিসিবির ভেতরে-বাইরে আলোচনা-সমাালোচনা চলছেই। এরই মধ্যে সেই লংকানদের বিপক্ষে শুরু হচ্ছে সাদা পোশাকের ক্রিকেটের পরীক্ষা।

চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে বুধবার (৩১ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯টায় শুরু হবে প্রথম টেস্টটি । এ ম্যাচটি সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলাদেশ টেলিভিশন (বিটিভি) ও গাজী টিভি।

ফরম্যাট পরিবর্তনের সঙ্গে বাংলাদেশের অধিনায়কত্বও বদলেছে। বদলেছে ভেন্যুও। ইনজুরির কারণে ছিটকে যাওয়া নিয়মিত অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকে ছাড়াই খেলতে হবে স্বাগতিকদের। গত বছরে শ্রীলংকার বিপক্ষে যে টেস্ট সিরিজে জায়গা হারিয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, ঘরের মাটিতে সেই লংকানদের বিপক্ষে টেস্টে প্রথমবারের মতো অধিনায়কত্ব করবেন তিনি।

ওয়ানডে ক্রিকেটে ত্রিদেশীয় সিরিজে শ্রীলংকার বিপক্ষে ফেভারিট হয়েও চ্যাম্পিয়ন হতে পারেনননি মাশরাফি মুর্তজারা। আর শ্রীলংকা এখন টেস্টে ভালো করছে, আর বাংলাদেশ এই ফরম্যাটে এখনও ওয়ানডের মতো শক্তিশালী হয়ে উঠতে পারেনি।

তারপর লংকানদের বিপক্ষে নিজেদের এগিয়ে রেখেই মাঠে নামছেন অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ। চন্ডিকা হাথুরুসিংহের দলের বিপক্ষে টেস্ট জিতে রঙ্গিন পোশাকের ক্ষতে কিছুটা মলম দিতে চায় স্বাগতিকরা। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে এদিন শুরু হবে সিরিজের প্রথম টেস্ট।

সাকিব আল হাসান দলে নেই। আর তাতেই তার পরিবর্তে দলে কাকে রাখবেন এ নিয়ে নির্বাচকরা চিন্তায় পড়ে গিয়েছিলেন। সাকিবের পরিবর্তে দলে এসেছে তিন স্পিনার-সানজামুল ইসলাম, তানবীর হায়দার ও আবদুর রাজ্জাক। তবে এ তিন জনের মধ্যে থেকে কাউকে একাদশে রাখা যাবে কীনা তা নিয়েই সংশয়ে আছে টিম ম্যানেজমেন্ট। সব মিলিয়ে দলে ছয়জন বিশেষজ্ঞ স্পিনার।

চট্টগ্রামে যে স্পিন সহায়ক উইকেট হবে তা  নিশ্চিত। এখন কয়জন স্পিনার খেলানো হবে সেটা নিয়েই টিম ম্যানেজমেন্টর চিন্তা। সাকিবের পরিবর্তে বাঁ-হাতি স্পিনার হিসেবে সানজামুল ইসলামই প্রথম পছন্দ।

তবে হুট করে দীর্ঘদিন পর আবদুর রাজ্জাককে দলে নিলেও তিনি যে একাদশে থাকছেন এটা মোটামুটি নিশ্চিত। এক পেসার নিয়েও মাঠে নামার কথা চিন্তা করছিল স্বাগতিকরা। কিš‘ শেষ পর্যন্ত মোস্তাফিজুর রহিমের সঙ্গে পেস বোলিং আক্রমনে থাকতে পারেন রুবেল হোসেনই। ম্যাচ পূর্ব সংবাদ সম্মেলনে মাহমুদউল্লাহ বলেন, ‘তারা (শ্রীলংকা) টেস্টে ভালো করছে। আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি এবং বিশ্বাস করি, দেশের মাটিতে আমরা এগিয়ে থাকবো।

সাকিব না থাকার পরও আমাদের যে ভারসাম্যপূর্ণ দল আছে তাতে সবার সামর্থ্য আছে ভালো কিছু করার। দলে যথেষ্ট স্পিনার ও পেস বোলার আছে। ইতিবাচক ব্যাটসম্যান আছে, আশা করি যে কোনো মুহূর্তে ম্যাচ নিজেদের দিকে নিয়ে আসতে পারব।’

ব্যাটিংয়ের সাকিব না থাকলেও টেস্টে ফিরেছেন ইমরুল কায়েস, মুমিনুল হক, মোসাদ্দেক হোসেন ও লিটন কুমার দাস। ঘরের মাঠে টেস্টে মুমিনুল সব সময়ই  দুর্দান্ত। সর্বশেষ বিসিএলেও অনেক রান করেছেন তিনি। তাই ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের চোখ থাকছে তার উপরই। এছাড়া টেস্টেও ওপেনিংয়ে বাংলাদেশের ভরসা সেই তামিম ইকবালই।

এদিকে ভারতের মাটিতে সর্বশেষ তিন ম্যাচের টেস্ট সিরিজে দুটিতে ড্র করেছে শ্রীলংকা। তার আগে সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাকিস্তানের বিপক্ষে ২-০-তে টেস্ট সিরিজ জিতেছে লংকানরা। সম্প্রতি সময়ে সংক্ষিপ্ত ফরম্যাটে তাদের পারফরম্যান্স ভালো না গেলেও টেস্টে দুর্দান্ত। স্পিন বোলিং উইকেট হলেও তাদের হাতে অনেক অপশন রয়েছে। বিশেষ করে রঙ্গনা হেরাথই ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারেন। রয়েছেন অফ-স্পিনার দিলরুয়ান পেরেরাও।

তবে প্রথম টেস্টেও অ্যাঞ্জেলো ম্যাথুস না খেলতে পারায় তারাও কিছুটা চিন্তিত। মঙ্গলবার অধিনায়ক দিনেশ চান্দিমাল বলেন ত্রিদেশীয় সিরিজে শিরোপা জেতার পর আত্মবিশ্বাসী শ্রীলংকা। তিনি বলেন, ‘এটা আলাদা ফরম্যাটে। আমাদের দলে রঙ্গনা হেরাথ দিলরুয়ান পেরেরার মতো অভিজ্ঞ বোলার রয়েছে। এটা দুই দলের জন্যই একটা প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ সিরিজ হবে বলেই মনে হচ্ছে।’

এছাড়া শ্রীলংকার ব্যাটিং লাইনআপ বেশ শক্তিশালী। দিমুথ কুরনারত্নে, চান্দিমাল, নিরোশান ডিকভেলা বড় ইনিংস খেলার সামর্থ্য রাখেন। ত্রিদেশীয় সিরিজ হারের দু:খ ভোলার লক্ষ্যেই মাঠে নামবে মুশফিক-মাহমুদউল্লাহরা।

Share.