পরিষ্কার করে বলুন, নির্বাচনকালীন কেমন সরকার চান: বিএনপিকে কাদের

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, বিএনপি নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে অন্ধকারে ঢিল ছুঁড়ে জাতিকে বিভ্রান্ত করছে।

তিনি আজ সোমবার বিকেলে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ের দলীয় কার্যালয়ের সামনে সরকারের চার বছরপূর্তি উপলক্ষে আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য উপ-কমিটির উদ্যোগে শীতার্তদের মধ্যে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন।

শিল্প ও বাণিজ্য উপ-কমিটির চেয়ারম্যান কাজী আকরাম উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সাত্তার, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক অ্যাডভোকেট আফজাল হোসেন, ত্রাণ ও সমাজকল্যাণ সম্পাদক সুজিত রায় নন্দী, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হাসনাত ও সাধারণ সম্পাদক শাহে আলম মুরাদ উপস্থিত ছিলেন।

সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে দ্বিধাগ্রস্ত। তারা এখন পর্যন্ত নির্বাচনকালীন সরকারের কোনো রূপরেখা দিতে পারেন নি। তারা ঘোষণা করেছিল, নির্বাচনকালীন সরকারের রূপরেখা ঘোষণা করবে। তারা আজ পর্যন্ত সে ঘোষণা দিতে পারেন নি।’

বিএনপি কখনো নির্বাচন সহায়ক সরকার, কখনো তত্ত্বাবধায়ক সরকার বা কখনো নির্দলীয় সরকারের দাবি করে উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বিএনপির প্রতি প্রশ্ন রেখে বলেন, পরিষ্কার করে বলবেন, আপনারা কোন সরকার চান। দেশের মানুষ তা জানতে চায়।

বিএনপি নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে অন্ধকারে ঢিল ছুঁড়ে জাতিকে বিভ্রান্ত করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বিএনপির নিজস্ব রাজনৈতিক স্বচ্ছ দৃষ্টিভঙ্গি নেই।

সেতুমন্ত্রী কাদের বলেন, ‘আমরা পরিষ্কারভাবে বলছি, আমরা আমাদের সংবিধানের বাইরে যেতে পারব না। আর নির্বাচনকালীন সরকার সংবিধানের মধ্যেই রয়েছে।’

তিনি বলেন, বিশ্বের অন্যান্য সংসদীয় সরকার পদ্ধতির দেশের যেভাবে নির্বাচন হয়, আমাদের দেশেও একই পদ্ধতিতে নির্বাচন হবে। তার কোনো ব্যতিক্রম হবে না। বিএনপি বার বার ২০১৪ সালের দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কথা বলে থাকে। বিএনপি নির্বাচনে না আসায় এ ধরনের নির্বাচনী ফলাফল হয়েছে। তারা তাদের দায়িত্ব পালন করলে এ ধরনের কথা সরকারকে শুনতে হতো না।

তিনি বলেন, আগামী জাতীয় নির্বাচন নিয়ে নতুন কোনো বিষয়ের অবতারণা করে লাভ নেই। সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে। নির্বাচনকালীন সরকার যথাযথভাবে তার দায়িত্ব পালন করবে।

ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, কুমিল্লা, নারায়ণগঞ্জ ও রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে সরকার যেভাবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)কে সহায়তা করেছে তেমনিভাবে আগামী জাতীয় নির্বাচনেও নির্বাচনকালীন সরকার ইসিকে প্রয়োজনীয় সহায়তা দেবে।

আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য উপ-কমিটির উদ্যোগে অসহায় শীতার্ত মানুষের মধ্যে মোট ছয় হাজার কম্বল বিতরণ করা হবে। আজ দু’হাজার শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। বাকী কম্বল দু’ধাপে বিতরণ করা হবে।

Share.