চীনে ডাইনোসরের ডিমের সন্ধান

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

এই পৃথিবী থেকে ডাইনোসরের বিলুপ্তি ঘটেছে লক্ষ লক্ষ বছর আগে। কিন্তু বিজ্ঞানীরা এদের নিয়ে গবেষণা এখনও করছেন। নানা পরীক্ষা নিরীক্ষার পরও ডাইনোসরদের নিয়ে বিজ্ঞানীদের কৌতূহল এখনও মেটেনি। এখনও রয়ে গিয়েছে নানা প্রশ্ন। মাটির নিচ থেকে পাওয়া ডাইনোসরের বিভিন্ন প্রজাতির জীবাশ্ম পরীক্ষা করে তারা এদের নিয়ে সিদ্ধান্তে পৌঁছাতে চেয়েছেন। কিন্তু সে পথ যে বহুদূর!

এমন অবস্থায় বিজ্ঞানীরা সম্প্রতি আরও কিছু উপাত্তের সন্ধান পেয়েছেন। চীনের স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের বরাত দিয়ে ভারতের জি নিউজ জানায়, চীনের জিয়ানজি প্রদেশের গুয়ানঝু অঞ্চলে প্রায় ৩০টি ডিমের জীবাশ্ম পাওয়া গেছে। গবেষকরা পরীক্ষা করে জানিয়েছেন, এগুলো ডাইনোসরের ডিমের জীবাশ্ম বলেই মনে হচ্ছে।

গুয়ানঝু’র ওই অঞ্চলে একটি স্কুল তৈরির কাজ চলছিল। সেখানেই মাটি খুঁড়তে গিয়ে প্রায় ৩০টি ডিমের জীবাশ্ম দেখতে পান কর্মীরা। কর্তৃপক্ষকে খবর দিলে ডিমের চেহারা দেখেই তাদের সন্দেহ হয়। এরপর ডাকা হয় প্রত্নতাত্ত্বিকদের।

বিশেষজ্ঞরা ডিমগুলো পরীক্ষা করে জানিয়েছেন, এগুলো বয়স কমপক্ষে ১৩০ মিলিয়ন অর্থাৎ ১৩ কোটি বছর। ভাগ্যের জোরেই প্রাচীন এই ডিমগুলো পাওয়া সম্ভব হয়েছে।

ভাগ্যের কথাটা অবশ্য মিথ্যে নয়! শ্রমিকরা ওই স্থানের বড় পাথরগুলো ভাঙার জন্য বিস্ফোরক ব্যবহার করছিল। এ কারণে অল্পের জন্যই বেঁচে যায় ডিমের জীবাশ্মগুলো।

পাথরের চাঁইগুলো এক জায়গায় জড়ো করার সময় পাখির বাসার মতো একটি বস্তুর জীবাশ্ম শ্রমিকদের নজরে পড়ে। সঙ্গে ২ মিলিমিটার পুরু কালো কোষের কিছু টুকরোও তারা দেখতে পায়। ভবনের কর্তৃপক্ষের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিরাও প্রথমে এই জীবাশ্মকে ডাইনোসরের ডিমের জীবাশ্ম বলেই সন্দেহ করে।

কিন্তু নিশ্চিত না হওয়ায় তারা থানায় খবর দেন। পরে পুলিশ এসে পুরো এলাকা ঘিরে ফেলে। এরপর দায়ু কাউন্টি জাদুঘরের বিশেষজ্ঞরা এসে ডিমগুলো পরীক্ষা করেন। জানান, এই জীবাশ্ম ক্রেটাকসাস যুগের। অর্থাৎ ১৫ কোটি বছর আগে যে জুরাসিক যুগ শুরু হয়েছিল এগুলো সে সময়ের। সেই যুগেও ডাইনোসরের অস্তিত্ব ছিল।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, গুয়ানঝাউ অঞ্চলে ডাইনোসরের আবাসভূমি ছিল। কেননা, আগেও এখানে তাদের অস্তিত্বের নানা নিদর্শন পাওয়া গেছে।

Share.