বিজয় দিবসে স্মৃতিসৌধে যাবেন খালেদা জিয়া

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

আগামী ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস ও ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবস উপলক্ষে ১০ দিনব্যাপী কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)।

বুধবার বেলা ১২টায় নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে যৌথসভা শেষে সংবাদ সম্মেলনে এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

১০ দিনব্যাপী এ কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে ১৬ ডিসেম্বর খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে জাতীয় স্মৃতিসৌধে শ্রদ্ধা নিবেদন, একই দিনে তিনি শহীদ জিয়ার মাজারে পূষ্পমাল্য অর্পন ও সূরা ফাতেহা পাঠ।
১৬ ডিসেম্বর কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সকল জেলা উপজেলায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন। ১৭ ডিসেম্বর ঢাকা মহানগর ঢাকা মহানগর উত্তর ও দক্ষিণ বিএনপির বিজয় র‌্যালী যেখানে দলের সকল অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠন অংশগ্রহন করবে। ১৯ ডিসেম্বর মহানগর নাট্যমঞ্চে বিএনপির আলোচনা সভা। ২৪ ডিসেম্বর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন রমনায় ‘মুক্তিযোদ্ধা’ সমাবেশ যেখানে দলের চেয়ারপারসন উপস্থিত থাকবেন বলেও জানান বিএনপির মহাসচিব।

তিনি আরও জানান, ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবস উপলক্ষ্যে ১৩ ডিসেম্বর মহানগর নাট্য মঞ্চে বিএনপির আলোচনা সভা, ১৪ ডিসেম্বর নয়া পল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়সহ সকল মহানগর, জেলা ও উপজেলায় কালো পতাকা উত্তোলন, ১৪ ডিসেম্বর শহীদ বুদ্ধিজীবীদের কবরে পুষ্পমাল্য অর্পণ করবে দলটি।

কর্মসূচি ঘোষণার পর ফখরুল বলেন, ১৬ ডিসম্বর আমাদের মহান বিজয় দিবস। দীর্ঘ ৯ মাস যুদ্ধ করে আমরা এই দিনটি পেয়েছি। স্বাধীনতার মূল লক্ষ্য ছিল গণতন্ত্র। অত্যন্ত দূর্ভাগ্যক্রমে, একটি রাজনৈতিক দল যারা নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের একমাত্র সত্ত্বাধিকারী মনে করেন। তারা একদলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করার লক্ষ্যে অত্যন্ত সুপরিকল্পিতভাবে গণতন্ত্রের সকল স্তম্ভ গুলোকে ভেঙ্গে দিয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আমরা যে লক্ষ্য নিয়ে যুদ্ধ করেছিলাম স্বাধীনতার এতো বছর পরেও সেই স্বপ্ন সেই লক্ষ্যের প্রতিফলন হচ্ছে না। ক্ষমতাসীন দল সংবিধানে দলীয় অনুচ্ছেদ বসিয়েছেন বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

সংবাদ সম্মেলনে এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু, সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব মুজিবুর রহমান সারোয়ার, সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, খায়রুল কবির খোকন, হাবিব উন নবী খান সোহেল, সাংগঠনিক সম্পাদক শ্যামা ওবায়েদ, প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি প্রমুখ।

Share.