এবার পিইসি’র প্রশ্নপত্র বাইরে, পরীক্ষা দিচ্ছেন অভিভাবকরা!

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

পরীক্ষা শুরুর কয়েক মিনিট পরই কেন্দ্রের আশেপাশে দলে দলে ভাগ হয়ে কিছু একটা করার জটলা চোখে পড়ে। কৌতুহল বশত একটু এগিয়ে গিয়েই দেখা গেল- প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার প্রশ্নপত্র দেখে সাদা কাগজে উত্তর লিখছেন অভিভাবকরা। এ যেন অভিভাবকদের পরীক্ষা চলছে।

রবিবার প্রাথমিক এডুকেশন সার্টিফিকেট (পিইসি) গণিত পরীক্ষা চলাকালীন টাঙ্গাইলের গোপালপুরের নারুচী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে এমন চিত্র দেখা গেছে। আর এ অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে উল্টো সাংবাদিকদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার।

প্রশ্নপত্র কিভাবে বাইরে আসলো জানতে চাইলে অভিভাবকরা বলেন, ‘পরীক্ষা কেন্দ্রের ভিতর থেকে প্রশ্নটি মোবাইলের মাধ্যমে ছবি তুলে স্থানীয় কোচিং সেন্টারের পরিচালকরা সরবরাহ করেছে। আর সেই প্রশ্ন দেখে সাদা কাগজে উত্তর লেখার পর দায়িত্বরত শিক্ষকদের ম্যানেজ করে শিক্ষার্থীদের কাছ পৌঁছে দেয়া হচ্ছে। অভিভাবকদের দেয়া নকল দেখেই পরীক্ষার মূল উত্তরপত্রে লিখছে শিক্ষার্থীরা। ওই কেন্দ্রে চারটি কোচিং সেন্টারের ৪৮ জন শিক্ষার্থী ছাড়াও ৩৯৭ জন পরীক্ষা দিচ্ছে।

উত্তরপত্র লেখার সময় ব্রাইটার কোচিং সেন্টারের এক শিক্ষক বলেন, ‘আমাদের শিক্ষার্থীরা এখানে পরীক্ষা দিচ্ছে। সুতরাং দায়িত্বের মধ্যেই এই কাজ করতে হচ্ছে। দায়িত্বরতদের ম্যানেজ করে মোবাইলে প্রশ্নের ছবি তুলে বাইরে আনা হয়েছে। সবাই করছে তাই আমাদের ছেলে-মেয়েদের জন্য একটু সহযোগিতা করছি।’

তবে অভিযোগ অস্বীকার করে নারুচী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রের সচিব সাইদুজ্জামান জানান, কেন্দ্রে সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা হচ্ছে।
কেন্দ্রের দায়িত্বপ্রাপ্ত উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা (ভারপ্রাপ্ত) আনোয়ার হোসেন জানান, বিচ্ছিন্ন এলাকা হওয়ায় এই কেন্দ্রে দায়িত্বপালন করা কষ্টের। তবে নকলের কোন সুযোগ নেই। প্রশ্নপত্র বাইরে যাওয়ার কোনো খবর জানা নেই।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা দিলরুবা শারমীনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি উল্টো সাংবাদিকদের সঙ্গে অসৌজন্যমূলক আচরণ করেন। এ ছাড়া সাংবাদিকরা কীভাবে পরীক্ষা কেন্দ্রে গেয়েছে তাও জানতে চান তিনি।

Share.