কোটা সংস্কার: আন্দোলনকারী রাশেদের বাবা আটক

Google+ Pinterest LinkedIn Tumblr +

সরকারি চাকরিতে কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা ও সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ-এর যুগ্ম আহ্বায়ক রাশেদ খানের বাবা নবাই বিশ্বাসকে আটক করেছে পুলিশ।

সোমবার (১৬ এপ্রিল) দুপুর আড়াইটার দিকে ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চরমুরাড়ীদহ গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়।

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এমদাদুল হক গণমাধ্যমকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তবে এ বিষয়ে কথা বলতে অনাগ্রহ প্রকাশ করেন ওসি।

উল্লেখ, ঢাকায় কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা রাশেদের বাড়ি ঝিনাইদহ সদর উপজেলার চরমুরাড়ীদহ গ্রামে।

এর আগে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে সংবাদ সম্মেলন শেষে দুপুরে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজের সামনে থেকে রাশেদসহ নুরুল হক নুরু ও ফারুককে সাদা মাইক্রো বাসে করে তুলে নিয়ে যায় পুলিশের গোয়েন্দা শাখা ডিবি’র সদস্যরা। কিছুক্ষণ পর ডিবি অফিস থেকে তাদের ছেড়ে দেয়া হয়।

পরে গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার আব্দুল বাতেন বলেন, ‘তাদের তদন্তের প্রয়োজনে নিয়ে আসা হলেও জিজ্ঞাসাবাদ করে ছেড়ে দেয়া হয়েছে।’


 কোটা আন্দোলনের নেতা রাশেদ খান

এদিকে নবাই বিশ্বাসকে আটকের পর সোমবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় গ্রন্থাগার চত্বরে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রশাসনের কাছে সরকারি চাকরিতে কোটা পদ্ধতি সংস্কার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়া শিক্ষার্থী ও তাদের পরিবারের নিরাপত্তার দাবি জানানো হয়েছে।

রাশেদ খান গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমার আব্বাকে (নবাই বিশ্বাস) তুলে নেয়া হয়েছে এবং বিশ্রী ভাষায় গালাগাল দিচ্ছে পুলিশ। আমি রাজনীতির সঙ্গে জড়িত নই বলেই কি আমাকে রাজনৈতিক ট্যাগ দেয়া হচ্ছে? আমাকেসহ আমার আত্মীয়-স্বজনকে হুমকি দেয়া হচ্ছে। আমি আশঙ্কা করছি তাদের ওপর আক্রমণ হতে পারে। সরকারের কাছে আমার আব্বার আটকের বিচার চাই। বর্তমানে তিনি ঝিনাইদহ সদর থানায় আছেন। সাধারণ শিক্ষার্থীদের যৌক্তিক দাবি আদায়ের জন্য আন্দোলন করেছি বলেই কি আমাদেরকে হত্যার হুমকি দেয়া হচ্ছে?’

Share.