Breaking News
Home / জাতীয় / এ বছরই কাজ শুরু করবে অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট

এ বছরই কাজ শুরু করবে অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট

চলতি বছরেই আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু করবে পুলিশ অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট (পিএটিইউ)। জঙ্গি ও সন্ত্রাস দমনে পুলিশের বিশেষায়িত এই ইউনিট গঠন করা হয়েছে।

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট পিএটিইউ’র সঙ্গে যুক্ত হবে। সিটিটিসি’র স্পেশাল উইপনস অ্যান্ড ট্যাকটিকস (সোয়াট) এবং বোম্ব ডিসপোজাল ইউনিটও এতে অন্তর্ভুক্ত হবে।

গত বছরের ১৯ সেপ্টেম্বর পুলিশ অ্যান্টি টেররিজম ইউনিটের (পিএটিইউ) অনুমোদন দেয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এ ইউনিটের প্রধান হবেন অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক (অতি. আইজিপি) পদের কর্মকর্তা।

এ ইউনিটের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ৫৮১টি পদ সৃষ্টি হয়েছে। এর মধ্যে ৩১টি ক্যাডার পদ স্থায়ীভাবে, ৫৫০টি পদ অস্থায়ীভাবে ও ৪১টি যানবাহন যুক্ত করা হয়।

এ ইউনিটের পদগুলোর মধ্যে রয়েছে অতিরিক্ত আইজিপি একজন (যিনি ইউনিট প্রধান হবেন), ডিআইজি (উপমহাপরিদর্শক) একজন, অতিরিক্ত ডিআইজি দুজন, পুলিশ সুপার পাঁচজন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ১০ জন, সহকারী পুলিশ সুপার ১২ জন, পুলিশ পরিদর্শক ৭৫ জন, সশস্ত্র ও নিরস্ত্র এসআই ১২৫ জন, সশস্ত্র ও নিরস্ত্র এএসআই ১৪০ জন, কনস্টেবল ২০০ জন, সিস্টেম অ্যানালিস্ট একজন, একজন সহকারী প্রকৌশলী (রক্ষণাবেক্ষণ), সহকারী প্রোগ্রামার একজন, অফিস সহকারী কাম কম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক দুজন, বাবুর্চি দুজন ও পরিচ্ছন্নতাকর্মী তিনজন।

যানবাহনের মধ্যে রয়েছে জিপ ১৬টি, সোয়াট ভ্যান দুটি, ডাবল কেবিন পিকআপ আটটি, অ্যাম্বুলেন্স একটি, পাঁচ কিংবা তিন টনের ট্রাক একটি, আর্মড পারসোনাল ক্যারিয়ার (এপিসি) একটি, প্রিজন ভ্যান একটি, ওয়াটার ট্রেলার একটি ও মোটরসাইকেল ১০টি।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও পুলিশ সদর দপ্তর সূত্র জানায়, দেশের যে কোনো স্থানে নিজের ক্ষমতাবলে অভিযান চালানো, গ্রেফতার ও তদন্ত পরিচালনার ক্ষমতা দেয়া হচ্ছে পিএটিইউকে। নব গঠিত বাহিনীর সদর দফতর স্থাপিত হবে রাজধানী ঢাকায়। পর্যায়ক্রমে বিভাগীয় শহরগুলোতে আঞ্চলিক কার্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে। এসব আঞ্চলিক কার্যালয়ের সদস্যরা সারাদেশে সমন্বিতভাবে জঙ্গি ও সন্ত্রাস দমনে দায়িত্ব পালন করবে।

কুরআন ও হাদিসের ভুল ব্যাখ্যা, জঙ্গিবাদে জড়িয়ে পথভ্রষ্ট হওয়াদের স্বাভাবিক জীবনে ফিরিয়ে আনা নিয়েও কাজ করবে বাহিনীটি।

সরকারের শীর্ষ একটি সূত্রে জানা গেছে, আগামী নির্বাচনে বড় বাধা আসতে পারে জঙ্গিগোষ্ঠীর কাছ থেকে। এমন আশঙ্কা সরকারের উচ্চমহলের। এ আশঙ্কা মাথায় রেখে জঙ্গি দমনে সরকার আরও কড়া পদক্ষেপের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। নির্বাচন নির্বিঘ্ন ও সহিংসতামুক্ত করতে হলে জঙ্গি দমন ও অবৈধ পথে আসা অস্ত্র প্রতিরোধে সীমান্ত নিরাপত্তাতে আরও কঠোর হতে হবে।

পুলিশ সদর দপ্তর সূত্র জানায়, গত বছরের ডিসেম্বরে পদোন্নতিপ্রাপ্ত অতিরিক্ত আইজিপি (সাবেক ঢাকা রেঞ্জের ডিআইজি) মোহাম্মদ শফিকুল ইসলামকে পিএটিইউ’র প্রধান এবং ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম ইউনিটের প্রধান অতিরিক্ত কমিশনার মো. মনিরুল ইসলামকে এ বাহিনীতে উপ-মহাপরিদর্শক (ডিআইজি) পদে বদলি করা হয়েছে।

এবছর কার্যক্রম শুরু করতে পিএটিইউ’র সদস্য আর্মড পুলিশের ২৫ জন এবং চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটনের ১৫ কর্মকর্তাকে ভারতের ন্যাশনাল সিকিউরিটি গার্ড সেন্টার থেকে কমান্ডো প্রশিক্ষণ দিয়ে আনা হয়েছে। এছাড়া সিংহভাগ জনবল যাবে ডিএমপি’র সিটিটিসি ইউনিট থেকে বলে জানা গেছে।

এর আগে পিএটিইউ গঠনের জন্য ২০০৯, ২০১১ ও ২০১৪ সালে পুলিশের পক্ষ থেকে তিন দফা প্রস্তাব দেয়া হয়। কিন্তু কোনো অনুমোদন দেয়া হয়নি। সর্বশেষ গত বছর জুলাই মাসে চতুর্থ দফা প্রস্তাবের পর সম্প্রতি এর অনুমোদন দেয় সরকার।

পুলিশ সদর দফতরের সহকারী মহা-পরিদর্শক (এআইজি-মিডিয়া) সহেলী ফেরদৌস জানান, একটি সভার মাধ্যমে শিগগিরই এই বাহিনীর বিষয়ে চূড়ান্ত ঘোষণা দেয়া হবে। এরপরই কাজ শুরু করবে অ্যান্টি টেররিজম ইউনিট। নবগঠিত বাহিনীটির পলিসি (নীতি-নির্ধারণ), দায়িত্ব ও কাজের ক্ষেত্র; সার্বিক বিষয়গুলো চূড়ান্ত পর্যায়ে রয়েছে বলেও জানান তিনি।

এখানে মন্তব্য করুন
শেয়ার করতে আপনার একাউন্ট আইকণে ক্লিক করুন

Check Also

‘পুলিশ অ্যান্টি টেররিজম’ সরল বিশ্বাসে অপরাধের দায়মুক্তি চায়!

সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ দমনে গঠিত ‘পুলিশ অ্যান্টি টেররিজম’ ইউনিটের জন্য খসড়া বিধিমালা প্রণয়ন করেছে পুলিশ …