Home / কলাম / যে কারণে হ্যাক হতে পারে আপনার ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট:: Meghla Ovi
কি কি কারণে হ্যাক হতে পারে ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট: Meghla Ovi
লিখাটি পড়তে তিন মিনিট সময় নিবে

যে কারণে হ্যাক হতে পারে আপনার ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট:: Meghla Ovi

প্রযুক্তিবিদ্যার উন্নয়নের ফলে জনপ্রিয় হয়ে উঠছে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমগুলো। আর সেই তালিকায় প্রথমেই আছে ফেসবুক। বর্তমানে ফেসবুক আমাদের জীবনের একটি অংশ হয়ে দাঁড়িয়েছে।
সোশ্যাল মিডিয়া এখন আর সেই সোশ্যাল মিডিয়া নেই বনে গেছে লাইফ মিডিয়া। সেলফি থেকে শুরু করে আমাদের সাথে যখন যা ঘটে তার প্রায় সব ধরণের আপডেট সাথে সাথে ফেসবুকে আপলোড করে থাকি।
বর্তমানে কোন নিউজ পড়ার জন্য আর নিউজ পেপারের প্রয়োজন হয়না-হয়না খেলা দেখতে টেলিভিশনের,ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লগইন করলেই চলে আসে বিশ্বের সকল সংবাদ-লাইভ খেলাধুলা।

ফেসবুক যেহেতু আমাদের কাছে এতোটা প্রয়োজনীয় একটি স্থান, তো এটার সুরক্ষা করবেন কিভাবে? ফেসবুকে এমন কিছু কাজ আছে যেগুলো আপনি সব কাজের মতোই স্বাভাবিক মনে করেন। কিন্তু না, এগুলোই হতে পারে আপনার আইডি হ্যাক হবার কারণ। বিভিন্ন কারণেই ফেসবুক আইডির পাসওয়ার্ড চলে যেতে পারে অন্যের নিয়ন্ত্রণে।
চলুন জেনে নেই ফেসবুক পাসওয়ার্ড হ্যাক হওয়ার কিছু কারণ সম্পর্কে-

। কে আপনার প্রোফাইল নিয়মিত ভিজিট করে? এটি এতোটাই মহামারি আকার ধারণ করেছে যে, বর্তমানে ফেসবুক কর্তিপক্ষ জানিয়ে দিয়েছে যে, এমন কোন অ্যাপ- টুলস বা অপশন নেই যেটি ব্যবহার করে জানা যাবে -যে ফেসবুকে কে কে আপনার প্রোফাইল ভিজিট করেছে। আর তাই আমিও স্ট্রংলি আপনাদের রেকমেন্ড করবো, খবরদার ভুলেও কারোর প্রোফাইল ভিজিট রিকোয়েস্ট একসেপ্ট করার দরকার নেই।

। সেলিব্রেটি অ্যাড রিকোয়েস্ট- কোন নাম করা বা ফেসবুক সেলিব্রেটি আপনাকে ফ্রেন্ড রিকোয়েস্ট পাঠিয়েছে, আপনি তো অবাক সাথে সাথে অ্যাড করে নিয়েছেন। এবার সে- আপনাকে ম্যাসেজ করলো একটি লিংক দিয়ে আর আপনি দৌড়ের উপ্রে চলে গেলেন সেখানে। আপনার কি মনে হয়, কোন সেলিব্রেটির এতো সময় আছে? আর আপনি এমন কি হয়ে পড়েছেন যে সে তার মূল্যবান সময় আপনার পেছনে ব্যয় করবে? ভুলে যান আর ধরে নিন এটা নিশ্চিত ফাদ আপনাকে ধরার জন্য। ভালো হয় এগুলো থেকে বিরত থাকুন।

ফেসবুক অ্যাপ:ফেসবুকে নানা অ্যাপ রয়েছে। এগুলো ব্যবহারের ক্ষেত্রে সব সময় সাবধান থাকা উচিত। অনেকেই এসব অ্যাপকে নিজের ইমেল একাউন্ট পাসওয়ার্ডসহ নানান তথ্য দিয়ে দেন। যা অনেক ক্ষেত্রেই এরা বিভিন্ন বিজ্ঞাপন সংস্থার কাছে বিক্রি করে। এভাবে ফেসবুক অ্যাপ ব্যবহারের মাধ্যমে নিজের একাউন্ট হারাতে পারেন

। কাস্টমাইজ অপশন- অনেক সময় দেখা যায় আপনার কাছে কাস্টমাইজ রিকোয়েস্ট আসবে। যেমন, ফেসবুক টাইম লাইনের রঙ, ডিজাইন পরিবর্তন, কোন স্পেশাল ইফেক্ট ইত্যাদি। মনে রাখবেন ফেসবুক কর্তিপক্ষ এমন কোন অপশন ব্যবহার কারিদের জন্য এখন পর্যন্ত রাখেনি। এগুলো সব থার্ড পার্টি অ্যাপ্লিকেশনের কাজ। হতে পারে কোন ফিশং টুলস। ভালো হয় এগুলো বর্জন করুন।

। সার্ভে বা জরীপ- সুন্দর বা আকর্ষণীয় কোন ইমেজ বা ব্যনার দিয়ে আপনাকে বললো একটি ছোট্ট সার্ভে বা জরীপে অংশ গ্রহন করতে। বিনিময়ে পাবেন পুরষ্কার জেতার সুযোগ। হুম এটা নিশ্চিত ফেক, তবে হ্যাঁ কিছু কিছু কোম্পানি সত্যি এমনটি করবে তবে এইভাবে চটকদার বিজ্ঞাপন দিবে না। সুতরাং বর্জন করুন বা বুঝে শুনে স্টেপ নিন।

। ভিডিও মার্কেটিং- “ফাঁস হয়ে গেলো অমক সেলিব্রেটির নুড ভিডিও” দেখার সাথে সাথেই ক্লিক? এটা আপনাকে ধরার অনেক সহজ একটি পথ। ভালো চান তো বর্জন করুন।

।আপনি যদি কোন মেয়ে হয়ে থাকেন তবে হুট করে আপনাকে কেউ একটি লিংক দিয়ে বললো যে এই লিংকে যেয়ে দেখো তোমার কতোগুলো ছবি দেখতে পাবে। হুম এমনি বললে হয়তো স্বাভাবিক ভাবেই আপনি যাবেন, কিন্তু এটা ফিশিং। ভালো হয় নির্ভরযোগ্য মানুষ থেকে পাওয়া লিংক গুলোই ক্লিক করুন।

। ওয়েবসাইটের শেয়ার :কিছু ব্যক্তিগত ওয়েবসাইট রয়েছে যেখানে শেয়ার বাটন ক্লিক করা ঝুঁকিপূর্ণ। কারণ থার্ড পার্টি ওয়েবসাইটে ছবি শেয়ার করতে সেখানে যে অপশন থাকে সেখানে ক্লিক করলেও অনেক সময় আপনার একাউন্ট ও পাসওয়ার্ড হ্যাক হতে পারে।

সাইবার ক্যাফে লগইন :অনেকে শুধু মোবাইলেই ফেসবুক চালাতে অভ্যস্ত। মাঝেমধ্যে কম্পিউটারে বসেন কেবল বিভিন্ন সমস্যার সমাধান করতে। এসব ক্ষেত্রে যারা পাবলিক কম্পিউটার যেমন- সাইবার ক্যাফেতে যান, অনেক সময় তারা একাউন্ট লগ আউট করতে ভুলে যান। অথবা অনেকেই লগইন করার সময়ে খেয়াল করেন না -রিমেম্বার পাসওয়ার্ড দেয়া রয়েছে। এভাবে আপনার অজান্তে অন্য কেউ আপনার একাউন্ট এ প্রবেশ করে হ্যাক করে নিতে পারে।

ফিশিং প্রক্রিয়ায় হ্যাকার আপনাকে বিভিন্নভাবে লিংক পাঠাবে। ফেসবুক ছাড়া ও আপনার ফোন নাম্বারে- কিংবা আপনার ইমেইলে। অবিকল ফেসবুক থেকে আসা নোটিফিকেশনের মতই লিংক আসবে । এইসব চিনার উপায় কি?  লক্ষ করতে হবে url link Facebook.com কিনা যদি বানান ভুল দেখেন তখন বুঝতে হবে এটা ফিশিং সাইট
একে বলা হয় ফিশার ওয়েব। অবিকল দেখতে একটি ওয়েবসাইটের মতো হলেও আসলে তা নয়। ফলে যদি ফেসবুক ভেবে লগইন করেন তাহলেই আইডি খোয়া যাবে।

।ফেসবুকে মোবাইল নম্বর? পরতে পারেন অ্যাকাউন্টির জন্যে বড় ধরণের বিপদে!
আপনি যদি আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে ফোন নম্বর দিয়ে থাকেন, তাহলে আজই সাবধান হোন। কারণ, ফেসবুকের প্রাইভেসি সেটিংস মোতাবেক যে কোনো ব্যক্তি ‘সার্চ বার’ -এ আপনার ফোন নম্বর দিলেই আপনার সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য পাবেন। সাইবার ক্রিমিনালরা সেই তথ্য নিয়ে অসদুপায় অবলম্বন করতে পারে। বিশ্বাস না হলে নিজে করে দেখুন- ফেসবুকের উপরে যেখানে ‘সার্চ’ অপশন রয়েছে (অর্থাৎ যেখানে কোনো বন্ধুর নাম লিখে তাঁর প্রোফাইল খোঁজেন) সেখানে একটি চেনা ফোন নম্বর টাইপ করুন। দেখুন, যার ফোন নম্বর টাইপ করেছে, তাঁর প্রোফাইলটি খুলে যাবে সঙ্গে সঙ্গে। কোনও নাম লিখে ‘সার্চ’ করতে হচ্ছে না। অবশ্য তখনই কারও প্রোফাইল দেখতে পারবেন, যখন ওই ব্যক্তির মোবাইল নম্বরটি ফেসবুকের সঙ্গে লিঙ্কড করা থাকবে।[[ সুতরাং ফেসবুকে ইমেইল ব্যাবহার করা উত্তম ]]

উপদেশ- বর্তমানে অ্যান্টিভাইরাস গুলো বেশ শক্তিশালী এবং ছোটখাটো ফিসিং বেশ সহজেই ধরে ফেলে। আর ব্রাউজার গুলোও এখন আগের থেকে অনেক শক্তিশালি হয়েছে। যেমন, বর্তমানে গুগল ক্রোম আপনাকে এমন কোন লিংক ভিজিট করতে দিবে না বা সতর্ক করবে যেখানে ভাইরাস বা এমন কিছু থাকার সম্ভাবনা আছে। মনে রাখবেন আপনার ছোট্ট একটি ভুলের কারনে ওয়েবে অনেক বড় ধরনের স্ক্যান্ডেল ছড়াতে পারে। তাই নিজে নিরাপদ থাকুন এবং অন্যকে সতর্ক করুন।
আচ্ছা আপনি কি কখনো এমন কোন অভিজ্ঞতার সম্মুখীন হয়েছেন? কখনো কি আপনার ফেসবুক আইডি হ্যাক হয়েছে বা হওয়ার উপক্রম? যদি হয়ে থাকে তবে আবার কিভবে সেটি ফেরত পেয়েছেন? আপনার অভিজ্ঞতা, মতামত বা নির্দেশিকা শেয়ার করতে পারেন কমেন্ট বক্সে, হতে পারে উপরে বর্ণিত আলোচনা থেকে আপনার উপদেশটি বেশী গুরুত্বপূর্ণ।

লিখেছেনঃ মোহাম্মাদ শাহ্‌ জালাল (অভি)

এখানে মন্তব্য করুন
শেয়ার করতে আপনার একাউন্ট আইকণে ক্লিক করুন

Check Also

ছাত্রলীগ ও আলাদীনের চেরাগ

ছোটবেলায় আমরা গল্প শুনেছি আলাদিনের জাদুর চেরাগ দিয়ে সব স্বপ্নপূরণ হয়ে যায়। আলাদিনের জাদুর ওই …