মা-ছেলে খুন: সন্দেহের তীর অভিনেত্রীর দিকে
মা-ছেলে খুন: সন্দেহের তীর অভিনেত্রীর দিকে

মা-ছেলে খুন: সন্দেহের তীর অভিনেত্রীর দিকে

রাজধানীর কাকরাইলে মা শামসুন্নাহার ও তার ছেলে সাজ্জাদুল করিম শাওন হত্যার ঘটনায় গৃহকর্তা আব্দুল করিম ও তার তৃতীয় স্ত্রী অভিনেত্রী শারমিন মুক্তাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে রমনা থানার পুলিশ।

বুধবার (১ নভেম্বর) সন্ধ্যায় নিজ বাসায় খুন হন শামসুন্নাহার ও তার ছেলে শাওন। ওই বাসার ভাড়াটিয়া (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) এক মহিলা বিডি২৪লাইভকে বলেন, এই হত্যার ঘটনা আমাদেরকে হতাস করে, কারণ বাড়িওয়ালা ভাবি অনেক ভাল ছিলেন। তাদের মা ছেলের মধ্যে অনেক মধুর সম্পর্ক ছিল, এমন সম্পর্ক খুব কম দেখা যায়।

ওই ভাড়াটিয়া জানান, ঘটনার রাতে আমরা প্রথমে কোন ধরনের আওয়াজ পাই নাই, পরে চিৎকার শুনে, উকি দিয়ে দেখি শাওন গলা কাটা অবস্থায় সিঁড়িতে পরে আছে। পারিবারিক কোনো ঝামেলা ছিল কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভাবি (শামসুন্নাহার) খুবই ধার্মিক মহিলা ছিলেন, তবে ভাইর সাথে প্রায় ঝামেলা হতো।

এই ঘটনার পর শামসুন্নাহারের স্বামী আব্দুল করিম, গৃহকর্মী, দারোয়ান ও ভবনটির নিচতলায় গার্মেন্টস সংক্রান্ত কোম্পানির কর্মচারিকে আটক করে ডিবি কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে তদন্ত করছে পুলিশের ক্রাইম সিন ইউনিট ও গোয়েন্দা দল।

রমনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী মইনুল বলেন, এই ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোন মামলা হয়নি, আর আমরা এখনো কিছু বের করতে পারিনি, তবে ধারনা করা হচ্ছে পারিবারিক কলহ জের থেকেই এমনটা হতে পারে।

বুধবার সন্ধ্যায় ভিআইপি রোডের ব্যবসায়ী আব্দুল করিমের ছয় তলা বাসার পাঁচতলা থেকে মা ও ছেলের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। হত্যাকাণ্ডের সময় গৃহকর্তা আব্দুল করিম বাসায় ছিলেন না। ওই বাসার নিরাপত্তাকর্মী পুলিশকে জানায়, এক ভাড়াটিয়ার অনুরোধে পানির পাম্প ছাড়তে গিয়ে অজ্ঞাত এক ব্যক্তিকে সে বাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতে দেখে।

এখানে মন্তব্য করুন
শেয়ার করতে আপনার একাউন্ট আইকণে ক্লিক করুন

Check Also

দৌলতদিয়া যৌনপল্লী থেকে কলেজ ছাত্রী উদ্ধার

দৌলতদিয়া যৌনপল্লী থেকে কলেজ ছাত্রী উদ্ধার

ঢাকা থেকে নিখোঁজের দুই মাস পর রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলার দৌলতদিয়া যৌনপল্লী থেকে এক কলেজ ছাত্রীকে …